BDExpress

জোহরি কাণ্ড নিয়ে বোর্ডকে কড়া চিঠি ক্ষুব্ধ সৌরভের


এই সময়: ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের সিইও রাহুল জোহরির #মিটু কেলেঙ্কারিতে জড়িয়ে পড়ার ঘটনা যে ভাবে সিওএ দেখছে, তাতে খুশি নন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। তাঁর মতে, গোটা ঘটনায় ভারতীয় বোর্ডের ভাবমূর্তি অত্যন্ত ক্ষুণ্ণ হয়েছে। এই নিয়ে বোর্ড পদাধিকারী কর্তাদের চিঠি দিয়েছেন সৌরভ। চিঠি পৌঁছেছে অস্থায়ী প্রেসিডেন্ট সিকে খান্না, সচিব অমিতাভ চৌধুরি ও কোষাধ্যক্ষ অনিরুদ্ধ চৌধুরির কাছে।

এতেই শেষ নয়। এই প্রথম সৌরভ চিঠিতে রবি শাস্ত্রীর কোচ মনোনয়ন যে ভাবে হয়েছে, তা নিয়েও লিখেছেন। সৌরভ নিজেও কোচ বাছাইয়ের অ্যাডভাইসরি কমিটিতে ছিলেন। কিন্তু তাঁদের উপেক্ষা করে যে ভাবে টিম ইন্ডিয়ার কোচিং স্টাফ নিয়োগ করা হয়েছে, তা মেনে নিতে পারেননি সৌরভ। তাঁর মতে, পুরো ব্যাপারটা 'বিশ্রী ভাবে' হয়েছে। চিঠিতে তাই তিনি লিখেছেন, 'এটা নিয়ে যত কম কথা বলা যায়, ততই ভালো।'

শাস্ত্রী নিয়ে খোলসা করে কিছু না বললেও রাহুল জোহরি ইস্যুতে সোচ্চার সৌরভ। চিঠিতে তাঁর বক্তব্য খুব স্পষ্ট, 'ভারতের ক্রিকেট প্রশাসন যে দিকে যাচ্ছে, সেটা খুবই ভয়ের কারণ হয়ে দাঁড়াচ্ছে। দেশের হয়ে বহু দিন ক্রিকেট খেলেছি। সেখানে আমাদের জীবনটা জয় ও হারের মধ্যে নিয়ন্ত্রিত হত। আসলে ভারতীয় ক্রিকেটের ভাবমূর্তিটা আমাদের কাছে খুব গুরুত্বপূর্ণ। এখন গত দু'বছর ধরে প্রশাসন যে ভাবে চলছে, তা নিয়ে হাজার প্রশ্ন থাকছে।'

সোজা কথায়, ভারতীয় ক্রিকেট বিপদের মধ্যে আছে বলেই মনে করছেন সৌরভ। চিঠিতে তিনি লিখেওছেন, 'আমি খুব চিন্তিত।' তার পর সিওএ-কেও তুলোধোনা করতে ছাড়েননি। যে ভাবে সিওএ চার জন সদস্য থেকে দু'জনে নেমে এসেছে, এবং এখন সেই দুই সদস্য রাহুল জোহরি ইস্যুতে বিভক্ত, সেটাও মানতে পারছেন সৌরভ। ঘটনা হল, ডায়না এডুলজি প্রকাশ্যেই জোহরির অপসারণ চেয়েছেন। আবার কমিটির চেয়ারম্যান বিনোদ রাই এই ব্যাপারটির নিষ্পত্তির দায়িত্ব একটি লিগ্যাল টিমের হাতে তুলে দিয়েছেন। সৌরভের বক্তব্য, 'আমি জানি না, সত্যি কোনটা। তবে সাম্প্রতিক যৌন নিগ্রহের যে অভিযোগটা এসেছে, সেটা বিসিসিআই খুব খারাপ ভাবে সামলাচ্ছে।'

আরো পড়ুন
  • 364
লোড হচ্ছে ···
আর নেই