BDExpress

সালমান-সানাইয়ের পর তালিকায় রেশমী, ভাদাইমারা

সেফ ইন্টারনেট স্লোগানকে সামনে রেখে দেশের সমালোচিত ইউটিউবার সালমান মুক্তাদিরকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য মঙ্গলবার (১৯ ফেব্রুয়ারি) ডিএমপির সাইবার ক্রাইম ইউনিটে নেয়া হয়। পরে ঐ দিন রাতেই তাকে মুক্তি দেওয়া হয়। এর আগে বিতর্কিত ভিডিও ফেসবুক লাইভের কারণে মডেল সানাইকেও জিজ্ঞাসাবাদ করেছে পুলিশের সাইবার সিকিউরিটি ও ক্রাইম ইউনিট।

নিরাপদ ইন্টারনেট ক্যাম্পেইনের অংশ হিসেবে এরপর জিজ্ঞাসাবাদের মুখোমুখি হতে পারেন ফেসবুক মডেল রেশমী অ্যালোন। এছাড়াও ইউটিউব চ্যানেল খুলে অশ্লীল ভিডিও ছড়ানো ‘ভাদাইমা’কেও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর মুখোমুখি করা হতে পারে।

ইতোমধ্যে সাইবার দুনিয়ায় পরিচিত ও সমালোচিত বিপথে যাওয়া মডেলদের তালিকা তৈরি করে তাদের একে একে এনে কাউন্সিলিং করা হচ্ছে। রোববার মডেল সানাই মাহবুব সুপ্রভা ও মঙ্গলবার সালমান মুক্তাদিরকে ডেকে কাউন্সিলিং করা হয়। কাউন্সলিংয়ের তালিকায় রয়েছে এমন একঝাঁক ইউটিউব চ্যানেলের অ্যাডমিন ও মডেল।

এ বিষয়ে বুধবার (২০ ফেব্রুয়ারি) ডিএমপির সাইবার সিকিউরিটি ও ক্রাইম বিভাগের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (এডিসি) নাজমুল ইসলাম বলেন, ‘যারাই ইন্টারনেটকে কলুষিত করবে তাদেরকেই আইনের আওতায় আনা হবে। রেশমী অ্যালোন, ভাদাইমা, টুনটুনি আদ্রিতাসহ অনেকেই এ তালিকায় রয়েছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘সাধারণ মানুষের পাশাপাশি তারকাদের অনেকেই টিকটক ও বিগো লাইভ অ্যাপ ব্যবহার করেন। তারকাসহ সমাজের গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি, যারা এসব অ্যাপ ব্যবহার করেন, তাদের অনুরোধ করছি, আপনারা যদি এসব ব্যবহার বন্ধ করেন, তাহলে সাধারণ মানুষ এমনিতে সরে যাবে। এসব অ্যাপ তরুণদের জন্য ভীষণ ক্ষতিকর।’

রেশমী এলোন ফেসবুক, ইউটিউব, বিগো লাইভের মতো সাইটে খোলামেলা ও অপেশাদার কথা বলেন। এছাড়াও ইউটিউবে ভাইদাইমা নামের বেশ কয়েকটি পেইজ থেকে অশ্লীল ভিডিও ও শর্ট ফিল্ম দেখানো হয়।

বিডি২৪লাইভ/আরআই

আরো পড়ুন
  • 735
লোড হচ্ছে ···
আর নেই