BDExpress

মনোনয়ন ফিরে পেলেন যারা

নির্বাচন কমিশন একাদশ সংসদ নির্বাচনে প্রার্থীদের বাতিল হওয়া মনোনয়নের ওপর শুনানি শুরু করেছে। বৃহস্পতিবার ( ৬ ডিসেম্বর) রাজধানীর আগারগাঁওয়ে নির্বাচন ভবনের লিফটের ১০ তলায় এজলাসে এ আপিল শুনানি শুরু হয়েছে।। প্রধান নির্বাচন কমিশনারসহ অন্যান্য কমিশনাররা সেখানে উপস্থিত থেকে আপিল শুনানি গ্রহণ করছেন।

প্রথম দিনের আপিলের এ আপিল শুনানি শুরু হয় চাঁপাইনবাবগঞ্জ-১ আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থী নবাব মো: শামছুল হুদাকে দিয়ে।

বগুড়া-৭ আসনে বিএনপি প্রার্থী মোরশেদ মিল্টনের প্রার্থীতা বৈধ ঘোষণা করা হয়েছে। খাগড়াছড়ির বিএনপি প্রার্থী আব্দুল ওয়াদুদ ভুঁইয়ার সিদ্ধান্ত অপেক্ষমান।

ঢাকা-২০ আসনে বিএনপি মনোনয়ন প্রত্যাশী তমিজ উদ্দিনের মনোনয়ন বৈধ। এছাড়াও বৈধ ঘোষণা করা হয়েছে কিশোরঞ্জ-২ আসনে মেজর (অব) মো আখতারুজ্জামানের মনোনয়ন বৈধ।

পটুয়াখালী-৩ আসনে বিএনপি প্রার্থী গোলাম মওলা রনির স্বাক্ষর না থাকায় আটকে ছিল মনোনয়নপত্র। আপিলের মাধ্যমে ফিরে পেলেন মনোনয়নপত্র।

ইতিমধ্যে বগুড়া-৭ আসনে বিএনপি প্রার্থী মোরশেদ মিল্টন বৈধ ঘোষণা করা হয়েছে। খাগড়াছড়ির বিএনপি প্রার্থী আবদুল ওয়াদুদ ভুঁইয়ার সিদ্ধান্ত এখনো অপেক্ষমান। ঢাকা-২০ আসনে বিএনপি মনোনয়নপ্রত্যাশী তমিজ উদ্দিনের মনোনয়ন বৈধ। এছাড়াও বৈধ ঘোষণা করা হয়েছে কিশোরঞ্জ-২ আসনে মেজর (অব) মো আখতারুজ্জামানের মনোনয়ন বৈধ। পটুয়াখালী-৩ আসনে বিএনপি প্রার্থী গোলাম মওলা রনির স্বাক্ষর না থাকায় আটকে ছিল মনোনয়নপত্র। আপিলের মাধ্যমে তার মনোনয়নপত্রও বৈধ ঘোষনা করেছে ইসি। ঢাকা-১ আসনে খন্দকার আবু আশফাকের মনোনয়ন বৈধ ঘোষণা। মোহাম্মদ শাহজাহান পটুয়াখালী-৩ আসন থেকে বৈধতা পেয়েছেন। সুমন সন্নামত পটুয়াখালী-১ বৈধতা পেয়েছেন। পারভেজ হোসেন দিনাজপুর-১ আসন থেকে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছিলেন। তার মনোনয়ন অবৈধ ঘোষণা করা হয়েছে। জহিরুল ইসলাম মিন্টু মাদরীপুর-১ আসনে বৈধ। এস এম খলিলুর রহমান ঠাকুরগাঁও-৩ অবৈধ। বৈধতা পেয়েছেন ফজলুর রহমান জয়পুরহাট-১ থেকে।

বিডি২৪লাইভ/এসএস

আরো পড়ুন
  • 614
লোড হচ্ছে ···
আর নেই